• English
  • বাংলা

Application of Registration Refund

নতুন আবেদন / পূর্বের আবেদনের তথ্য সংশোধন অথবা পূর্বের আবেদনের তথ্য যাচাই করুন।

২০২০ সালে পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশ্যে নিবন্ধিত সম্মানিত হজযাত্রীদের জন্য জরুরি বিজ্ঞপ্তিঃ

বেসরকারি ব্যবস্থাপনাধীন নিবন্ধন বাতিলকারী ব্যক্তিগণের ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট এজেন্সি কর্তৃক তাদের ব্যাংক একাউন্টের বিপরীতে প্রত্যয়ন/ অনুমোদন প্রদান সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিঃ
 
 

সরকারি ব্যাবস্থাপনার নিবন্ধিত হজযাত্রীর নিবন্ধন বাতিল পূর্বক ব্যাংকে জমাকৃত অর্থ ফেরত প্রক্রিয়াঃ
refund-step-phase-2
 
 

ধাপ ১: আবেদন

হজ পোর্টালে নিজে বা নিবন্ধন কেন্দ্র হতে অনলাইনে ফরম পূরণ করতে হবে। হজযাত্রীর নিবন্ধন ও প্রাক-নিবন্ধনের সমুদয় অর্থ একসঙ্গে প্রদান করা হবে। শুধুমাত্র একই ভাউচারে নিবন্ধিত একই পরিবারের হজযাত্রীগন একসঙ্গে আবেদন করতে পারবেন, অন্যথায় আলাদা আলাদা আবেদন করতে হবে। অর্থ রিফান্ডের ক্ষেত্রে কোনো ধরণের চার্জ কাটা হবে না।

ধাপ ২: সুপারিশ

আবেদন ঢাকা হজ অফিস যাচাই করে অনলাইনে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের জন্য প্রেরণ করবে।

ধাপ ৩: অনুমোদন

রিফান্ডের আবেদন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত হলে হজ পোর্টালে নিবন্ধন রিফান্ড সেকশন হতে “রিফান্ড ভাউচার” ডাউনলোড করবেন। রিফান্ড আবেদন অনুমোদিত হলে আপনার নিবন্ধন ও প্রাক-নিবন্ধন উভয়ই বাতিল হয়ে যাবে। হজে যেতে হলে সম্পূর্ণ নতুন করে প্রাক-নিবন্ধন করতে হবে।

ধাপ ৪:অর্থ ফেরত

পরিচয়পত্রসহ ডাউনলোডকৃত রিফান্ড ভাউচারটি নিয়ে সোনালী ব্যাংকের নির্বাচিত ব্রাঞ্চে গিয়ে পে-অর্ডার সংগ্রহ করতে হবে বা BEFTN নিশ্চিত করে নিবন্ধনের অর্থ ট্রান্সফার করতে হবে।

 

বেসরকারি ব্যাবস্থাপনার নিবন্ধিত হজযাত্রীর নিবন্ধন বাতিল পূর্বক ব্যাংকে জমাকৃত অর্থ ফেরত প্রক্রিয়াঃ

ধাপ ১: আবেদন

নিজে অথবা নিবন্ধনকারী হজ এজেন্সির মাধ্যমে অনলাইনে ফরম পূরণ করতে হবে। হজযাত্রীর নিবন্ধন ভাউচারে প্রদত্ত অর্থ রিফান্ড ভাউচারে ফেরত দেয়া হবে ও প্রাক-নিবন্ধনের অর্থ পূর্বের ন্যায় পরিচালক হজ এর নিকট থেকে সংগ্রহ করবেন। শুধুমাত্র একই ভাউচারে নিবন্ধিত একই পরিবারের হজযাত্রীগন একসঙ্গে আবেদন করতে পারবেন, অন্যথায় আলাদা আলাদা আবেদন করতে হবে। অর্থ রিফান্ডের ক্ষেত্রে কোনো ধরণের চার্জ কাটা হবে না। একাধিক ব্যক্তির রিফান্ডের আবেদন একসঙ্গে করা হলে তা যাচাই করার জন্য সময় প্রয়োজন হবে।

ধাপ ২: সুপারিশ

আবেদন সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সি যাচাই করে অনলাইনে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে অনুমোদনের জন্য প্রেরণ করবে।

ধাপ ৩: অনুমোদন

ররিফান্ডের আবেদন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত হলে হজ পোর্টালে নিবন্ধন রিফান্ড সেকশন হতে “রিফান্ড ভাউচার” ডাউনলোড করবেন। রিফান্ড আবেদন অনুমোদিত হলে আপনার নিবন্ধন ও প্রাক-নিবন্ধন উভয়ই বাতিল হয়ে যাবে। হজে যেতে হলে সম্পূর্ণ নতুন করে প্রাক-নিবন্ধন করতে হবে।

ধাপ ৪:অর্থ ফেরত

হজ এজেন্সির মাধ্যমে সংগ্রহ করার অপসন প্রদান করে থাকলে সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করে অর্থ গ্রহণ করতে হবে। অথবা পরিচয়পত্রসহ ডাউনলোডকৃত রিফান্ড ভাউচারটি নিয়ে নিবন্ধনকারী ব্যাংকের নির্বাচিত ব্রাঞ্চে গিয়ে পে-অর্ডার সংগ্রহ করতে হবে বা BEFTN নিশ্চিত করে নিবন্ধনের অর্থ ট্রান্সফার করতে হবে। বেসরকারি হজযাত্রীদের নিবন্ধনের অর্থ ছাড়ের জন্য সংশ্লিষ্ট হজ এজেন্সি ব্যাংক বরাবর পেমেন্ট স্ট্যান্ডিং অর্ডার / প্রত্যায়নপত্র প্রদান করবে।

 

২০২০ সালের রেজিস্ট্রেশন রিফান্ড আবেদন প্রক্রিয়াটির ভিডিও টিউটরিয়াল দেখার জন্য এইখানে ক্লিক করুন – রেজিস্ট্রেশন রিফান্ড আবেদন ভিডিও টিউটরিয়াল